আনন্দলোক ১২ মার্চ ২০১৪ পিডিএফ Anandalok 12 March 2014 pdf

আনন্দলোক ১২ মার্চ ২০১৪ পিডিএফ Anandalok 12 March 2014 pdf

আনন্দলোক ১২ মার্চ ২০১৪ পিডিএফ Anandalok 12 March 2014 pdf ডাউনলোড করে পড়া শুরু করুন আজই। Anandalok 12 March 2014 pdf এবারের সংখ্যায় থাকছে ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্রের নায়ক দেবের অজানা নানান কথা। Anandalok 12 March 2014 pdf ডাউনলোড করুন।

আনন্দলোক ১২ মার্চ ২০১৪ পিডিএফ Anandalok 12 March 2014 pdf

Anandalok 12 March 2014 pdf সূচিপত্রঃ

কভার স্টোরি
দেবের
দশাবতার
‘রাজনীতিক’
অবতারে
আত্মপ্রকাশের পর
দেব প্রথম দীর্ঘ।
সাক্ষাৎকার দিলেন
আনন্দলোককে।
ন’টি ভিন্ন অবতারে
নিজেকে বিশ্লেষণ
করলেন তিনি।
ডাকঘর ৬
মার্কশিট ৩৯
নারী ৫৭
গল্পগুজব ও দিনকাল চ
ফ্যাশনে ভূষণে ৪০
ক্লিক ক্লিক ৫৮
মুহূর্ত ২০
মুখোমুখি
মাধুরী দীক্ষিত ২৬
হারানো সুর ৪২
বাক্স রহস্য ৪৬
স্পোর্টস নিউজ ৪৮
সেরা পাঁচ ৬৩
গান FUN &
পর্দার পিছনে ৬৫
শুনতে পেলাম ৬৬
ক্যাপশন কনটেস্ট ৬৯
রোহিত সামন্ত ৬৮
বলি টলি ২৮
শুভ মহরত ৪৯ সরগম ৫০
অজানা কথা ৩২
অকপটে ৫১
সিনেমা যেমন ৭০
ক্লোজ আপ ৩8
প্রতিবেদন ৫২
ভাগ্যক্রমে ৭৩
প্রিয় বন্ধু ৩৮
পুরুষের চোখে
শেষ পাতা ৭
প্রচ্ছদ: দেব
ফোটো: সোমনাথ রায় মেকআপ: সোমনাথ কুণ্ডু

Anandalok 12 March 2014 pdf এর নমুনাঃ

‘গুলাব গ্যাং’এ আপনার রুদ্রমূর্তি দেখে অনেকেই কিন্তু আপনাকে ভয় পেতে শুরু করেছেন। আপনার স্বামী শ্রীরাম মাধব নেনেও কী সেই দলে পড়েন? (হাসি) ও তো আগে থেকেই আমার এই রুদ্রমূর্তির কথা জানত! তবে হ্যাঁ, এই ছবির জন্য আমি স্পেশ্যাল শাওলিন কুং ফু-র ট্রেনিং নিয়েছি। তা ছাড়া ডেনভারে থাকাকালীন তেকোন্ডো শিখেছিলাম। সেটাও গুলাব গ্যাং’-এ কাজে লেগেছে। কয়েকদিন আগে রাম মজা করে বলছিল, “এবার ভাবছি বাড়ির সব সিকিয়োরিটি গার্ডদের ছুটি দিয়ে দেব’ (হাসি)! অন আ সিরিয়াস নোট, ‘গুলাব গ্যাং’এ আমার বিধ্বংসী ইমেজ নিয়ে প্রচুর কথাবার্তা হচ্ছে।

সেদিন একটি খবরের কাগজে দেখলাম লেখা রয়েছে, ‘নতুন অবতারে মাধুরী দীক্ষিত’। কিন্তু এরকম বিধ্বংসী চরিত্রে আমি এর আগেও অনেকবার অভিনয় করেছি। ‘আনজাম’, ‘মৃত্যুদণ্ড’, ‘লজ্জা’… তাই সকলে কেন ‘গুলাব গ্যাং’-এই আমার ‘নতুন’ ইমেজ নিয়ে কথা বলছেন, বুঝতে পারছি না।

আনন্দলোক পূজাবার্ষিকী ১৪৩০ (২০২৩) পিডিএফ Anandalok Pujabarshiki 2023 pdf (1430)

অর্থাৎ আপনি বলতে চাইছেন ‘গুলাব গ্যাং’-এ নতুন কিছুই নেই? Anandalok 12 March 2014 pdf

আপনি তো দেখছি সৌমিকের (‘গুলাব গ্যাং’-এর পরিচালক সৌমিক সেন) হাতে মার খাওয়াবেন (হাসি)! না, না, মোটেই তা নয়। অন্যান্য ছবিগুলিতে আমি প্রথমে ভিক্টিমাইজড হই এবং তারপর কারও সাহায্যে প্রতিবাদের আওয়াজ তুলি। কিন্তু ‘গুলাব গ্যাং’-এ আমি প্রথম থেকেই নিপীড়িতদের পাশে দাঁড়াই। তাদের প্রতিবাদ করতে শেখাই। এই ছবির আরও একটি ইউএসপি আছে। ছবির হিরো এবং ভিলেন, দু’জনেই মহিলা। অর্থাৎ বলিউডে একটা সময় যে লড়াই অমিতাভ বচ্চন-প্রেম চোপড়া কিংবা শাহরুখ খান- অমরীশ পুরির মধ্যে চলত, ‘গুলাব গ্যাং’এ সেই লড়াই দেখা যাবে মাধুরী দীক্ষিত এবং জুহি চাওলার মধ্যে অ্যান্ড ট্রাস্ট মি, উওম্যান পাওয়ার রস!

একটা সময় জুহি চাওলার সঙ্গে আপনার রেষারেষি নিয়ে প্রচুর কথা শোনা যেত। প্রথমবার জুহির সঙ্গে স্ক্রিন স্পেস শেয়ার করার অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

ওটা স্রেফ একটা গুজব ছিল। জুহির সঙ্গে কোনওদিনই রেষারেষি ছিল না। ইনফ্যাক্ট, আমার কারও সঙ্গেই কোনও রেষারেষি ছিল না। বা নেই। থাকবেই বা কেন? সকলের একটা নিজস্ব জায়গা আছে এবং আমি মনে করি কেউ কারও জায়গা নিতে পারেন না। অমিতাভ বচ্চনের পর তো বলিউডে কত সুপারহিট নায়ক এসেছেন, কিন্তু কেউ কি বিগ বি-র জায়গা নিতে পেরেছেন? বা মিস্টার বচ্চন কি কখনও রাজ কপূরের জায়গা নিতে পেরেছেন? আমার তো মনে হয় যারা ইনসিকিয়োরিটিতে ভোগে, একমাত্র তারাই রেষারেষি করে।

রিরংসা pdf – সঞ্চারী চক্রবর্তী চ্যাটার্জী Riransha pdf – Sanchari Chakraborty Chatterjee

বলিউডের অন্যতম লেজেন্ডারি নায়িকা আপনি। এখনকার দিনের সিনেমা দেখেন নিশ্চয়ই … তা সাম্প্রতিককালের কোন নায়িকার কাজ আপনার ভাল লাগে?

সকলেই তো ভাল কাজ করছে।

একটু বেশি ডিপ্লোমেসি হয়ে গেল না? Anandalok 12 March 2014 pdf

ডিপ্লোমেসি নয়, সত্যি বলছি। এখন প্রচুর ভাল ভাল ছবি হচ্ছে। আগে ‘মাদার ইন্ডিয়া’ কিংবা ‘বন্দিনী’র মতো মহিলাকেন্দ্রিক ছবি হত ঠিকই, কিন্তু এখন নায়িকাদের স্কোপ অনেক বেশি। তাঁরা নিজেদের এক্সপ্লোর করার সুযোগ পান। অনেক কিছু ইম্প্রোভাইজ করতে পারেন। আমার সময় আমিও চেষ্টা করেছি এমন ছবি করতে, যেখানে আমার কিছু করার থাকবে। শুধু গাছের ডাল ধরে নাচ গান করে ‘গ্ল্যামডল’ সেজে থাকাটাই একজন নায়িকার কাজ নয়। ‘বেটা’, “ইয়ারানা’, ‘রাজা’, সবকটি ছবিতেই আমার চরিত্র ভীষণ পাওয়ারফুল ছিল। অনেকের ধারণা, কমর্শিয়াল হিন্দি ছবি মানে শুধুই নায়কদের খেলা।

আমি কিন্তু সেটা ভুল প্রমাণিত করেছি। “আনজাম’ ছবিতে দর্শকেরা শাহরুখকে যতটা মনে রেখেছেন, ঠিক ততটাই কিন্তু আমাকেও মনে রেখেছেন! এবার আপনার প্রশ্নের উত্তরে আসি। এখনকার দিনে অনেককেই ভাল লাগে। দীপিকা পাড়ুকোন, বিদ্যা বালন, প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, সোনাক্ষী সিনহা। ওই যে আগেই বলেছি, সকলেরই একটা নিজস্ব জায়গা আছে এবং কেউ কারও জায়গা নিতে পারবে না। হালফিলে আলিয়া ভট্টকেও খুব ভাল লাগে।

“আজা নাচলে’ ছবি দিয়ে আপনি আবার বলিউডে কামব্যাক করেছিলেন। ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি’ ছবিতে ‘ঘাগরা’ গানে আপনার নাচও সকলকে মুগ্ধ করেছে। আর এখন ‘দেড় ইশকিয়া’ হয়ে ‘গুলাব গ্যাং’। কী মনে হয়, একটা সময় আপনাকে নিে দর্শকদের মধ্যে যে ক্রেজ ছিল, তা এখনও আছে?

এটা তো আপনারা, অর্থাৎ সাংবাদিকরা ভাল বলতে পারবেন। Anandalok 12 March 2014 pdf
আমার মনে হয় আমার ফ্যানরা এখনও আমাকে আগের মতোই ভালবাসেন। বিয়ের পর যখন বিদেশে পাড়ি দিলাম, তখন ফ্যানদের কাছ থেকে গুচ্ছ গুচ্ছ মেল পেতাম। সকলের একটাই দাবি ছিল, আমি যেন আবার অভিনয়ে ফিরে আসি। দেড় ইশকিয়া’ ছবিটি কিন্তু হার্ডকোর কমর্শিয়াল নয়। তবুও ছবিটি বক্স অফিসে খুব ভাল ব্যবসা করেছে। আমি প্রার্থনা করি, ‘গুলাব গ্যাং’ও যেন বক্স অফিসে সাফল্য পায়। আমি, জুহি, সৌমিক, ছবির সঙ্গে জড়িত সকলেই নিজেদের হান্ড্রেড অ্যান্ড টেন পার্সেন্ট দিয়েছি।

বলা হয়, ‘ফেম’ নাকি একধরনের নেশা। তা এই নেশা ছেড়ে যখন বিদেশে ঘর-সংসার করতে পাড়ি দিলেন, কষ্ট হয়নি?

আমি খুব প্ল্যান করে জীবনে এগিয়েছি। যখন বিয়ে করলাম, তখন ঠিকই করে নিয়েছিলাম যে এবার ঘর-সংসারে মন দেব। আফটার অল ওটাও কিন্তু একজন মহিলার কর্তব্য। এখন আমার ছেলেরা বড় হয়েছে, তাই এবার আমি অভিনয়ে সময় দিতে পারি। তবে তার পাশাপাশি ঘর-সংসারও সামলাব। তবে এর জন্য আমি রামকে ধন্যবাদ দিতে চাই। ও পাশে না থাকলে, আমি আবার অভিনয়ে কামব্যাক করতে পারতাম না। তা ছাড়া দর্শকদের ধন্যবাদ দিতে চাই। একটা সময় ভাবা হত, নায়িকাদের বিয়ে হয়ে যাওয়া মানে কেরিয়ার শেষ। কিন্তু এখনকার দর্শকদের মানসিকতা পাল্টেছে। Anandalok 12 March 2014 pdf

Anandalok 12 March 2014 pdf download link

Download link / Read Online

Be the first to comment

Leave a Reply